রাউজানে নন্দন পার্কে চলছিল বাল্যবিয়ে, ম্যাজিস্ট্রেটের হানায় পণ্ডু, জরিমানা

0
197
নিউজটি শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মো. আরফাত হোসাইন, রাউজান, চট্টগ্রামঃ চট্টগ্রামের রাউজানে বাল্যবিবাহের অভিযোগে একটি বিয়ের অনুষ্ঠান পণ্ডু করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। সেই সাথে বাল্যবিবাহের আয়োজন করায় বর ও কনের পরিবারকে ৩০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়।
শনিবার (০২ অক্টোবর) বিকেল ৫টায় পৌরসভার সুলতানপুর নন্দন পার্কে এঘটনা ঘটে। রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগ অভিযান পরিচালনা করেন।
জানা যায়, পৌরসভার আলীখিল গ্রামের মো. সিরাজের ছেলে মো. ইকবালের সাথে পূর্ব গুজরার আধার মানিক গ্রামের সানা উল্লার মেয়ে সামিরা সুলতানার বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। সবকিছু প্রস্তুত। নন্দন পার্কে বর-কনের আত্মীয়-স্বজনে ভরপুর। অনেকে করছেন ফটোশেসন। সবার খাওয়া শেষ। বাকি শুধু বর-কনে। 
এমন সময় পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সাথে নিয়ে বিয়ের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগ। তিনি কনের পরিবারকে মেয়ের ১৮ বছর পূর্ণ হওয়ার কাগজপত্র দেখাতে বললে তারা ব্যর্থ হন। পরে বাল্যবিবাহ করার অপরাধে বর পক্ষকে ২০হাজার ও বাল্য বিয়ের দেয়ার অপরাধে কনে পক্ষকে ১০হাজার টাকা জরিমানা প্রদান করেন। বিয়ের অনুষ্ঠান পণ্ডু করে বর-কনে ও আত্মীয়স্বজনকে পার্ক থেকে বের করে দেয়া হয়। এসময় বর-কনে না খেয়ে অনুষ্ঠানস্থল ত্যাগ করেন। 
এপ্রসঙ্গে রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, গোপন সুত্রে বাল্যবিবাহের কথা জানতে পেরে আমরা বিয়ের অনুষ্ঠানে আসি। কনের পরিবারকে মেয়ের কাগজপত্র (জন্মনিবন্ধন/এনআইডি) দেখাতে বলা হয়। অনেকক্ষণ অপেক্ষার পরও তারা দেখাতে পারেনি। পরে বাল্যবিবাহের অপরাধে দুই পরিবারকে ৩০হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেয়া হয়।
তিনি আরও বলেন, কনে পক্ষ চট্টগ্রামের নোটারী পাবলিক কার্যালয়ের এফিডেভিট দেখায়। যা আমাদের কাছে গ্রহণ যোগ্যতা নেই।
#SN #HA

 


নিউজটি শেয়ার করুন।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here