করোনায় সবকিছু এলোমেলো, রাউজানে মানুষের মন ভালো নেই

0
392
রাউজানের চুয়েট ক্যাম্পাস।
নিউজটি শেয়ার করুন।
  • 1.1K
  •  
  •  
  •  
  •  

আরফাত হোসাইন, রাউজান, চট্টগ্রামঃ হঠাৎ করে সবকিছু নিরব নিস্তব্ধ হয়ে গেল। আগের মত কোলাহল নেই। থমকে গেছে পুরো পৃথিবীর ‍রুপ বৈচিত্র। অদৃশ্য এক ছোঁয়ায় যেন বদলে গেলো পরিবেশ। মানুষের আনাগোনা নেই। বাস ধরার প্রতিযোগিতা নেই। অফিসে পৌঁছার তাড়া নেই। হাট-বাজারে ভিড় নেই। চিরচেনা সবুজ প্রান্থরে যেন প্রাণ নেই। করোনার ভয়ে ভর করে একবুক আশা নিয়ে হাটছে মানুষ। ভালো নেই, কেউ ভালো নেই, ভালো নেই মানুষের মন।

দেশের অন্য স্থানের মতই চট্টগ্রামের রাউজানেও করোনাভাইরাস (Covid-19)  রোগে সংক্রমিত হওয়ার ভয়ে দিনযাপন করছে সবাই। হাসি নেই কারো মুখে। কিভাবে সংসার চালাবে সেই চিন্তা যেন ভর করেছে সবার মাথায়। সরকারের নির্দেশনায় বন্ধ রাখা হয়েছে সকল অফিস আদালত, শিল্পপ্রতিষ্ঠান। এমন পরিস্থিতিতে দিন মজুর ও খেটে খাওয়া মানুষরাই সবচেয়ে কষ্টে দিন পার করছে। প্রধানমন্ত্রীর আহবানে সাড়া দিয়ে ত্রাণ সামগ্রী উপহার দিয়ে সহযোগিতা করছেন অনেকেই।

সম্প্রতি রাউজান উপজেলা ঘুরে দেখা যায়, কোথাও আগের সেই ব্যস্ততা নেই। সড়কে তেমন গাড়ি নেই। প্রায় ফাঁকা রাউজানের অলিগলি। রাস্তায় কিছু হতদরিদ্র ত্রাণের আশায় এদিকওদিক ছুটাছুটি করছে। অনেকেই ত্রাণ পেয়ে মুখে হাসি রেখে বাড়ি ফিরছে।

রিকশা চালক জলিল জানান, অভাবের কারণে ভয়ে ভয়ে গাড়ি নিয়ে বের হয়েছি। গাড়ি না চালালে তো সংসার চলে না। কিন্তু রাস্তায় তো যাত্রী নেই। সারাদিন মাত্র ১৮০ টাকা আয় করেছি। এভাবে চলতে থাকলে জানিনা কি হবে।

ব্যবসায়ী ফরিদ মিয়া বলেন, কিছু সময় দোকান খোলা রাখলেও চাহিদা কম। করোনার কারণে মানুষ ঘর থেকে বের হচ্ছে না। ব্যবসায় ক্ষতি ছাড়া কিছুই দেখছি না। সামনে আসছে রমজান মাস। ব্যবসার সময় এটি। কিন্তু সবকিছু এলোমেলা হয়ে গেল। শহুর থেকে মালামাল নিয়ে আসতেও সমস্যা হচ্ছে।

বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. নুরুল ইসলাম জানান, করোনা সংক্রমণ ঠোকাতে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখেছে। দিন দিন বাড়ানো হচ্ছে ছুটির তালিকা। মনে হচ্ছে যেন অনিশ্চিত এক সময়ে দিন কাটাচ্ছি। আমাদের ছেলেমেয়েদের জন্যে বেশি চিন্তা হচ্ছে। আল্লাহ যেন সবাইকে সুস্থ রাখে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সাইফুদ্দিন, হোসাইন, সাঈদ, বেলাল, বাপ্পু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ। ঘরেও মন বসছে না। শুধু চিন্তা হচ্ছে। এমন ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে ভাবিনি। আগে আমরা বাবা মায়ের কাছে এমন ঘটনার গল্প শুনে বড় হয়েছি। আজ যেন আমরা নিজেরাই সাক্ষী।

#SmileNews #HA


নিউজটি শেয়ার করুন।
  • 1.1K
  •  
  •  
  •  
  •  

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here